• PDF

প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার বাণী

খুলনা জেলা পরিষদ বাংলাদেশের অন্যতম প্রাচীন জেলা পরিষদ সমূহের অন্যতম। ১৮৮৫ সালে খুলনা জেলা বোর্ড গঠিত হয়। কালের পরিক্রমায় সে দিনের খুলনা জেলা বোর্ডই আজকের খুলনা জেলা পরিষদ। সাতক্ষীরা এবং বাগেরহাট ও এক সময়ে খুলনা জেলা পরিষদের আওতাধীন ছিল।

খুলনা জেলা পরিষদ জেলার ৯টি উপজেলা, খুলনা মহানগর ও ০২টি পৌরসভার গণমানুষের সেবায় সর্বদা নিয়োজিত। মসজিদ, মন্দির, ক্লাব, খেলার মাঠ উন্নয়ন, রাস্তা নির্মাণ, অসহায় ও হত দরিদ্র মানুষের প্রতি সাহায্যর হাত বাড়িয়ে দেওয়া, মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান, বিধবা ও অসহায় মহিলাদের আত্ম কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে সেলাই মেশিন বিতরণ, দরিদ্র পুরুষদের মধ্যে রিক্সা ভ্যান বিতরণ, যুব ও যুব মহিলাদের স্বাবলম্বী করার লক্ষ্যে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ প্রদান, ডাক-বাংলো ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি গণমুখী কর্মসূচী গ্রহণ করে খুলনা জেলা পরিষদ জেলার মানুষের কাছে আস্থা অর্জণ করেছে।

‘আইলা’ বিধ্বস্ত দক্ষিণ খুলনার মানুষের সুপেয় পানি প্রাপ্তির সুবিধার্থে জেলা পরিষদের মালিকানাধীন সকল পুকুর ও জলাশয় উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। মানুষের ব্যবহারের সুবিধার্থে বিভিন্ন নদী ও জলাশয়ে ঘাট নির্মাণ জেলা পরিষদের সেবামূলক কাজের আরেকটি দৃষ্টান্ত।

পর্যটনের সুবিধার্থে কয়রা উপজেলা সদরে একটি নয়নাভিরাম ডাকবাংলো নির্মাণের কাজ চলমান আছে। ডাকবাংলোতে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত চমৎকার কক্ষ সমূহ নির্মাণ করা হচ্ছে। সুন্দরবন পরিদর্শনেচ্ছুদের জন্য এটি একটি অনন্য সাধারণ ব্যবস্থা হবে। ডাকবাংলোর পাশেই কপোতাক্ষ নদ। নদী পথে স্পীডবোট যোগে সুন্দরবন ভ্রমণ শেষে আবারো ডাকবাংলোয় এসে রাত্রিযাপন করা যাবে। ভ্রমন পিপাসুদের প্রতি কয়রা ডাকবাংলোয় থেকে সুন্দরবন পরিদর্শনের জন্য উদার আমন্ত্রণ রইল।

দক্ষিণ বেদকাশি থেকে সাচিয়াদহ এবং সুতারখালী থেকে যুগ্নীপাশা পর্যন্ত এই বিস্তীর্ণ জনপদের মানুষের সেবায় এক অনন্য সাধারণ সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠানের নাম খুলনা জেলা পরিষদ। খুলনা জেলা পরিষদ সকল জেলা বাসীর সহযোগিতা প্রত্যাশী।


প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা
জেলা পরিষদ,খুলনা
ফোনঃ ০৪১-৮১০৯৯৩।

জেলা পরিষদ, খুলনা

Joomla Slide Menu by DART Creations
You are here: প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার শুভেচ্ছা